আমাদের সম্পর্কে

সাস্থ, শিক্ষা,কৃষি,তথ্য,বিনোদন ও উন্নয়নে রেডিও ঝিনুক ৯৯.২ এফ এম গনমানুষের কন্ঠস্বর।

এসএমএস পোর্টাল: rj  স্পেস দিয়ে নাম,বয়স,ঠিকানা ও মতামত লিখে যে কোন মোবাইল থেকে পাঠিয়ে দিন ২৭৭৭। এছাড়াও ফোনইন প্রোগ্রামে অংশগ্রহন করতে ফোন করুন ০৪৫২৬৩৩৪৪।
রেডিও স্টেশন: রেডিও ঝিনুক ,সৃজনী ভবন( চতুর্থ তলা) ১১১ পবহাটি রোড ,  পবহাটি ঝিনাইদাহ-৭৩০০।
ফোন: ০৪৫১৬৩৩৪৪, ঋধী: ৮৮-০৪১৬৩৩৪৬ মোবাইল: ০১৯২৬৮৮৮৬৪৯, ০১৯২৬৮৮৮৬৭৭,০১৬৭৪৮৪৩২৫৮। ই-মেইল:radiojhenuk@gmail.com

কমিউনিটি রেডিও দক্ষিন এশিয়ার বিভিন্ন দেশে যেমন- ভারত,নেপালও শ্রীলংকাতে চালু আছে। সেই অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে সামাজিকভাবে বিচ্ছিন্ন,অবহেলিত এবং বঞ্চিতদের সকল প্রকার অধিকার প্রতিষ্ঠায় বাংলাদেশ সরকার গনমানুষের দোরগোড়ায় লোকজ গান,সাহিত্য-সাংস্কৃতি,আধুনিক জ্ঞান ও প্রযুক্তি পৌছে দেয়ার লক্ষ্যই দেশে এই প্রথম ১৪ টি কমিউনিটি রেডিও স্থাপিত হয়েছে। এর মধ্যে রেডিও ঝিনুক অন্যতম।
বর্তমান বিশ্বকে তথ্য ও প্রযুক্তির বিশ্ব বলে অখ্যায়িত করা হয়। কিন্তু কমিউনিটির জনগন তথ্য ও প্রযুক্তির সুফল থেকে অনেকটাই বঞ্চিত হয়। ঝিনাইদাহ এর পাশ্ববর্তি অঞ্চলে জনগন কে আবহাওয়া পুর্বাভাস,সাস্থ,কৃষিবার্তাসহ দৈনন্দিন জীবনের গুরুত্বপুর্ন বিষয়ের সাথে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে স্থাপিত হয়েছে রেডিও ঝিনুক। এটি একটি সৃজনী বাংলাদেশের সামাজিক উদ্যোগের একটি অনন্য প্রয়াশ। যেসব মানুষের গনমাধ্যমে প্রবেশাধিকার নেই বা গোষ্ঠিগত উন্নয়নে মতামত প্রকাশের সুযোগ নেই তাদের কথা বলার সুযোগ করে দিচ্ছে রেডিও ঝিনুক।

রেডিও ঝিনুক একটি কমিউনিটি রেডিও । এটি বাংলাদেশ বেতারের মতোই। তবে  বাংলাদেশ বেতারের ন্যায় সারা দেশের মানুষ এটি শুনতে পারেনা। রেডিও ঝিনুকের সম্প্রচার এলাকা ঝিনাইদাহ জেলার পুরো অংশ। এছাড়া মাগুরা,যশোর,চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়া জেলার অধিকাংশ জনগন অনুষ্ঠান উপভোগ করতে পারে। সাধারন রেডিওর সঙ্গে পার্থক্য হচ্ছে এই গনমাধ্যমের অনুষ্ঠান নির্মাতা,স্ক্রিপ্ট লেখক,সংবাদ পাঠক উপস্থাপক,অনুষ্ঠানের উৎস হল কমিউনিটির জনগন। কমিউনিটির জনগন নিজেরাই অনুষ্ঠান তৈরী করে নিজেদের জন্য।

লাইসেন্স:
০৫ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয় থেকে রেডিও ঝিনুক অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য লাইসেন্স প্রাপ্ত। লাইসেন্স নং- ০৯

লক্ষ্য: তথ্যের মাধমে কমিউনিটি জনগেষ্ঠিকে আর্থ-সামাজিকভাবে সক্ষম করা।

উদ্দেশ্য:
১) তথ্য ও জ্ঞান প্রাপ্তিতে শহর এবং গ্রামের দুরত্ব কমিয়ে আনা।
২) কমিউনিটি সেবা প্রদান করা এবং স্থানীয় লোকজ,আর্থ-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক জীবন বিকাশের সুযোগ সৃষ্টি করা ।
৩)গ্রামীন জনগোষ্ঠিকে ইস্যুভিত্তিক কিছু বিষয়ে প্রতিরোধে সচেতন করা।( যেমন- আত্মহত্যা,বাল্যবিবাহ, যৌতুক,মাদক,এইস আইভি/এইডস)
৪) নারী ও শিশুর ক্ষমতায়ন এবং অধিকার সুরক্ষায় সহয়তা করা।
৫) বিরোদনধর্মী অনুষ্ঠান প্রচারে মাধ্যমে কমিউনিটির জনগনকে আনন্দ প্রদান করা।
৬) সাস্থ,পুষ্টি,কৃষি, মানবাধিকার ও আইনী সচেতনমুলক অনুষ্ঠান প্রচার করে জনগনকে অবহিত করা।

অনুষ্ঠান সম্প্রচারের সময়ঃ
রেডিও ঝিনুক সকাল ১১:০০ টা থেকে রাত ১০:০০ টা পর্যন্ত্ মোট ১১ ঘন্টা ৩০ মিনিট বিরতি হীন ভাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে। ভবিষ্যাতে সক্ষমতা বৃদ্ধির সাথে সাথে আরো সস্প্রচার সময় বৃদ্ধি করা হবে।

অনুষ্ঠানের ধরনঃ
 নাটক, ম্যাগাজিন, সাক্ষাতকার, অলোচনা,ডকুমেন্টারি গান,জিঙ্গেল ভক্সপপ, স্পট প্রোগ্রাম, ফোনইন প্রোগ্রাম,লাইঅ ইত্যাদি ফরমেটে অনুষ্ঠান তৈরী করে সম্প্রচার করা হয়।
বর্তমানে মোবাইল প্রায় সবারই হাতে রয়েছে। অধিকাঙশ মোবাইলে এফ এম  রেডিওর অপশন আছে, এছাড়া  এফএম রেডিও প্রায় সবার ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে। একজন কর্মিজীবি মানুষ ঘর থেকে মোবাইল কিংবা এফএম রেডিও তার কর্মক্ষেত্রেও নিয়ে যেতে পারেন। আপনি গ্রামে কিংবা শহরে বশে দেশ বিদেশের বিভিন্ন খবর শোনেন। কিন্তু  আপনার প্রতিবেশি ছেলে/মেয়েটি যে খুব ভালো গান গায় কিংবা আপনার এলাকার স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা একটি দারুৃন নাটক করেছে সে খবর কেবল আপনাকে রেডিও ঝিনুকই দিতে পারে।
ঝিনুকের অনুষ্ঠান শুনতে াাপনার মোবাইলের এফ এশ রেডিও অপশন থেকে টিউন করুন ৯৯.২ এফ এশ । এছাড়া সল্পমুল্যের এফএম রেডিও থেকে রেডিও ঝিনুক শুনতে পারেন।